১১:৫৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শিবালয় দুনীতির অভিযোগে প্রধান শিক্ষক ইউছুফ বরখাস্ত হয়েছে

  • নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট : ১১:২৭:১০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ মার্চ ২০২৪
  • 84

আকাশ চৌধুরী
শিবালয় উপজেলার উথলী আব্দুল গণি সরকার উচ্চ বিদ্যালয় এর প্রধান শিক্ষক মো: ইউছুফ আলীকে বরখাস্ত করা হয়েছে। জানা গেছে বিদ্যালয়ের অর্থ আত্মসাত, অনিয়ম-বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও অসৌজন্যমূলক আচারনের দায়ে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি-এসএমসি তাকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নেয়। নিশ্চিত করেন, এসএমসি সভাপতি মো: সালাউদ্দিন সরকার।
জানা গেছে, ১৯৬৭ সালে প্রতিষ্ঠিত এ বিদ্যালয়ে বর্তমানে দেড় হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে। অবকাঠামো উন্নয়ন ও শিক্ষার মান নির্নয়ে এ বিদ্যালয় অন্যতম বিদ্যাপীঠ হিসেবে পরিচিত। প্রায় ১০ বছর আগে এ কিদ্যালয়ে যোগদানের পর থেকে উক্ত প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ের বিভিন্ন তহবিলের অর্থ আত্মসাত, অনিয়ম-দুর্নীতি করায় বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি তাকে সতর্ক করে। কিন্তু তিনি নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে নানা বিশৃঙ্খলা ও অসৌজন্যমূলক আচরন করে আসছে। এ নিয়ে শিক্ষার্থী-অভিভাবক, শিক্ষক ও বিদ্যালয় হিতৈষীদের মাঝে দারুন ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি উক্ত অনিয়মের বিষয়ে অনুসন্ধান ও অডিট চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়। দীর্ঘ তদন্দ শেষে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির চাঞ্চল্যকর তথ্য বেড়িয়ে আসে।
এসএমসি সভাপতি মো: সালাউদ্দিন সরকার জানান, প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ যাচাই-বাছাই, তদন্ত ও অডিট শেষে প্রায় ৫৬ লক্ষ টাকা আত্মসাতসহ নানা দুর্নীতির বিষয় প্রমানিত হয়। এসএমসির বিশেয় সভায় উক্ত প্রধান শিক্ষকের উপস্থিতিতে তাকে সাময়িক বহিস্কারের চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। ২৮ মার্চ ২০২৪ তাকে সিদ্ধান্তের চিঠি প্রদান ও সংশ্লিষ্ঠ দপ্তরে কাগজ-পত্র প্রেরন করা হয়েছে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয়

শিবালয়ে মোবাইল কোর্টে ১৮৬০০০ টাকা জরিমানা করেন – এস এম ফয়েজ উদ্দিন

শিবালয় দুনীতির অভিযোগে প্রধান শিক্ষক ইউছুফ বরখাস্ত হয়েছে

আপডেট : ১১:২৭:১০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ মার্চ ২০২৪

আকাশ চৌধুরী
শিবালয় উপজেলার উথলী আব্দুল গণি সরকার উচ্চ বিদ্যালয় এর প্রধান শিক্ষক মো: ইউছুফ আলীকে বরখাস্ত করা হয়েছে। জানা গেছে বিদ্যালয়ের অর্থ আত্মসাত, অনিয়ম-বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও অসৌজন্যমূলক আচারনের দায়ে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি-এসএমসি তাকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নেয়। নিশ্চিত করেন, এসএমসি সভাপতি মো: সালাউদ্দিন সরকার।
জানা গেছে, ১৯৬৭ সালে প্রতিষ্ঠিত এ বিদ্যালয়ে বর্তমানে দেড় হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে। অবকাঠামো উন্নয়ন ও শিক্ষার মান নির্নয়ে এ বিদ্যালয় অন্যতম বিদ্যাপীঠ হিসেবে পরিচিত। প্রায় ১০ বছর আগে এ কিদ্যালয়ে যোগদানের পর থেকে উক্ত প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ের বিভিন্ন তহবিলের অর্থ আত্মসাত, অনিয়ম-দুর্নীতি করায় বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি তাকে সতর্ক করে। কিন্তু তিনি নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে নানা বিশৃঙ্খলা ও অসৌজন্যমূলক আচরন করে আসছে। এ নিয়ে শিক্ষার্থী-অভিভাবক, শিক্ষক ও বিদ্যালয় হিতৈষীদের মাঝে দারুন ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি উক্ত অনিয়মের বিষয়ে অনুসন্ধান ও অডিট চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়। দীর্ঘ তদন্দ শেষে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির চাঞ্চল্যকর তথ্য বেড়িয়ে আসে।
এসএমসি সভাপতি মো: সালাউদ্দিন সরকার জানান, প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ যাচাই-বাছাই, তদন্ত ও অডিট শেষে প্রায় ৫৬ লক্ষ টাকা আত্মসাতসহ নানা দুর্নীতির বিষয় প্রমানিত হয়। এসএমসির বিশেয় সভায় উক্ত প্রধান শিক্ষকের উপস্থিতিতে তাকে সাময়িক বহিস্কারের চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। ২৮ মার্চ ২০২৪ তাকে সিদ্ধান্তের চিঠি প্রদান ও সংশ্লিষ্ঠ দপ্তরে কাগজ-পত্র প্রেরন করা হয়েছে।